শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১০:৪৭ অপরাহ্ন

sakarya escort sakarya escort sakarya escort serdivan escort webmaster forum

serdivan escort serdivan escort serdivan escort hendek escort ferizli escort geyve escort akyazı escort karasu escort sapanca escort

রাজশাহীতে সোনালী ফসলের ভরা মাঠে ধান কাটা শুরু

নাজিম হাসান, রাজশাহী প্রতিনিধি
  • আপডেট : রবিবার, ৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ৫৭ বার পঠিত
রাজশাহীতে ধান কাটা শুরু

রাজশাহীতে বন্যার ধাক্কা কাটিয়ে নতুন ফসল ঘরে ওঠার আগে কয়েক দফায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমনের আবাদ। তাই দিগন্ত বিস্তৃত সোনালী ধানে কৃষকরা খুশি। যেদিকে তাকায় চোখ যায় যতদুরে শুধুই সোনালী ফসলে ভরা কৃষকের তৃপ্তি জাগানো রক্ত ঘামানো জীবনের সব উজাড় করে দিয়ে মাঠে ফলিয়েছেন বাঙ্গালী জাতির প্রধানতম খাবার ধান। অনেক প্রতিকুলতা পার করে উত্তর বঙ্গের ধান ফলানোর অন্যতম এলাকা রাজশাহীর বরেন্দ অঞ্চল।

এছাড়াও জেলার বিভিন্ন উপজেলার প্রতিটি এলাকা জুড়ে মাঠে শোভা পাচ্ছে সোনালী ধানের শীষ। প্রতিটি মাঠে এক সাথে পেকেছে ধান। সাথে কাটা পড়ছে বেশির ভাগ ধান। বারবার প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করে সোনালী ধান দেখে মন উজাড় করছেন হাজারো কৃষকেরা। সেই ধান কাটতে আগমন ঘটছে বহিরাগত কৃষি শ্রমিকদের। ফলে গারস্থ কৃষকদের মনে এক প্রকার উল্লাসের ছাপ লক্ষ করা যাচ্ছে। এমন কি ধানের দাম ভালো থাকায় চাষিদের মনে এসেছে তৃপ্তির ঢেকুর।

জানা যায় রাজশাহীর জনসাধারন কৃষির উপর নির্ভরশীল। তার মধ্যে বরেন্দ অঞ্চলে আমনের ফসল সবচেয়ে বেশি জমিতে হয়। শুরু থেকেই বন্যাসহ নানা দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হয়েছে চাষিদের। অনেকের জমি পানিতে ঢুবে গেছে। চারার অভাবে পুনরায় রোপন করতে পারেন নি নিচু এলাকার জমির মালিকরা। আবার ধীর গতিতে পানি নামার কারনে অনেকের রোপিত জমি ঢূবে গেলেও পানি না নামার কারনে রোপন হয়নি ধান। সেই সাথে দেখা দেয় ব্যাপকহারে কারেন্ট পোকা।

সব প্রতিকুলতা পিছনে ফেলে তৃপ্তির ঢেকুর ফেলা শুরু হয়েছে কৃষকদের মনে। কারন এ আমন ধানের উপর নির্ভরশীল হাজারো কৃষক। মুল রাস্তার দু ধারে দারন শোভা পাচ্ছে আমনের সোনালী শীষ। যেন সোনালী রঙয়ে সেজেশে দিগন্ত জোড়া আমন ধানের মাঠ। ধান কাটা পড়ে কম বেশি এক সাথে। এজন্যে ধান কাটা শ্রমিক সংকট দেখা দেয় চরম তাকে।

রাজশাহীর হাজারো কৃষকের শ্রমিক হিসেবে ধান কেটে থাকেন চাপাইনবাবগঞ্জ জেলার বিভিন্ন গ্রাম গঞ্জের কৃষি শ্রমিকরা। জেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা গেছে চলতি আমন ১০ জাতের ধান রোপন করেছেন কৃষকরা।

তার মধ্যে ৪৯ জাতের ধান রোপন হয়েছে ১৫৪৭ হেক্টর জমিতে , ৫২ জাতের ১৫০ হেক্টর , ৫১ জাতের ১১৬০ হেক্টর , ৬২ জাতের ১৫০ হেক্টর , ৫৬ জাতের ১২৫ হেক্টর , ৩৪ জাতের ৩২০ হেক্টর , ৫৭ জাতের ২০ হেক্টর , বিনা ৭ জাতের ১৯৫০ হেক্টর ,স্বর্ণা ১৪ হাজার ৮১২ হেক্টর ,স্থানীয় জাতের ১২৬৪ হেক্টর জমিতে।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© All rights reserved © 2021 Dailynobobarta
Developed By Dailynobobarta