রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১১:০৩ পূর্বাহ্ন

sakarya escort sakarya escort sakarya escort serdivan escort webmaster forum

serdivan escort serdivan escort serdivan escort hendek escort ferizli escort geyve escort akyazı escort karasu escort sapanca escort

রাজশাহীতে ঘুষের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেও বহাল এসআই সোহেল

হাবিব জুয়েল, রাজশাহী ব্যুরো
  • আপডেট : সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১
  • ৩৪৬ বার পঠিত
রাজশাহীতে ঘুষের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেও বহাল এসআই সোহেল

রাজশাহীতে ঘুষের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেও বহাল এসআই সোহেল। করোনা ক্লান্তি লগ্নে যে পুলিশ আতংক নামে পরিচিত সেই পুলিশ এখন আস্থার নাম। বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশ পুলিশ সদস্যদের জয় জয়কার। কিন্তু মুষ্টিমেয় সদস্যের অপেশাদার আচরণ ও কর্মকান্ডের জন্য ম্লান হতে বসেছে পুলিশের সব সাফল্য। ২০১৩ সালে দেশব্যাপী খুঁজে খুঁজে বের করা হয়েছিল দূর্নীতিতে নিমজ্জিত পুলিশ সদস্যদের নাম ও তালিকা। এরপর ব্যবস্থা নেয়া হয় ঐ সকল পুলিশ সদস্যর বিরুদ্ধে।

এরই ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালে রাজশাহী মহানগর ডিবিকে ঢেলে সাজান রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক। কিন্তু কি আর করার, শষ্যের মধ্যেই ভূত। ঐ সময় এক যোগে ৪১ জন সদস্যকে বদলী করলেও আড়ালে থেকে যায় এসআই সোহেল। এই এসআই সোহেল ২০২০ সালেও দূর্নীতিতে চাম্পিয়ন ছিলেন এবং এখনও আছেন।

গেল সপ্তাহে রাজশাহী মহানগর ডিবির এই এসআই সোহেলের বিরুদ্ধে স্থানীয় ও জাতীয় গনমাধ্যমে ঘুষ বানিজ্যের ভাইরাল ভিডিওর সংবাদ প্রকাশ হয় । কিন্তু সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পরপরেই ভিডিওতে থাকা ঐ নারীকে ও তার স্বামীকে ফোন দিয়ে ডিবি অফিসে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে জোরপূর্বক একটি জবানবন্দি রেকর্ড করেন।শুধু তাই নয় উক্ত ঘুষ বানিজ্যের ভিডিওতে ছদ্মবেশে থাকা স্থানীয় একজন শিক্ষানবিশ সাংবাদিককেও কোন প্রকার চিঠি ইস্যু ছাড়া ডেকে পাঠানো হয় রাজশাহী মহানগর ডিবির কার্যালয়ে। যা নিঃসন্দেহে স্বেচ্ছাচারীতার বহিঃপ্রকাশ।

অন্যদিকে রাজশাহী মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় অনুসন্ধানে আরোও জানা যায়, রাজশাহী মহানগর ডিবির এই এসআই সোহেলের বিরুদ্ধে কেউ কোন অভিযোগ করলেই অভিযোগকারীকে ১/২ মাসের মধ্যে মাদক,অস্ত্র কিংবা বড় কোন মামলায় ফাঁসিয়ে দিয়ে নিজেকে সাধু দাবি করেন নিজেকে। আর এমন ঘটনার অসংখ্য নজির রেখেছেন এই ক্ষমতাধর এসআই সোহেল।

গত ১৩/১০/২০২০ তারিখে রাজশাহী মহানগর ডিবির ডিসি আবু আহম্মদ আল মামুন একটি বিতর্কিত মামলার বিষয়ে কয়েক দফা কৈফিয়ত তলব করেন এসআই সোহেলকে। উল্লেখ্য যে, ঐ ঘটনায় সোহেলের ঘুস বানিজ্যের সংবাদ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পৌছালে তার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়। কিন্তু আবারোও ম্যানেজ মাস্টার এসআই সোহেল সব কিছু ম্যানেজ করে নেন রাতারাতি।

তবে এসআই সোহেল বিষয়ে ফোন ধরছেন না সংশ্লিষ্ট দফতরের কোন কর্মকর্তা। মুখ খুলতেও নারাজ অনেকেই। তবে রাজশাহীর সচেতন সমাজ জানতে চায়, কি প্রত্যাশায় ঘুষ বানিজ্যের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরেও দূর্নীতিবাজ এসআই সোহেল এখনও কার মদদে বহাল আছেন রাজশাহী মহানগর ডিবিতে?

এদিকে রাজশাহী মহানগর ডিবির গ্রেফতার বানিজ্যের এইরুপ কর্মকান্ডে উদ্যোগ প্রকাশ করেছেন রাজশাহী শহর রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান। জামাত খান বলেন – আমরা রাজশাহীবাসী শান্তিপ্রিয়। আমরা চাইনা প্রশাসন কাউকে অন্যায়ভাবে মামলা দিয়ে হয়রানী করুক।

সেই সাথে পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানাব, মুস্টিমেয় পুলিশ এখনও দূর্নীতিতে নিমজ্জিত। অবিলম্বে তাদের আইনের আওতায় আনুন এবং যুগপযোগী বিচার নিশ্চিত করুন। অবশ্য এসআই সোহেল প্রশ্নে নিন্দুকদের মুখ বন্ধ করতে কতক্ষণ নীরবতা পালন করবে রাজশাহী মহানগর ডিবি এটাই এখন প্রশ্ন ?

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© All rights reserved © 2021 Dailynobobarta
Developed By Dailynobobarta