রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৪৩ অপরাহ্ন

sakarya escort sakarya escort sakarya escort serdivan escort webmaster forum

serdivan escort serdivan escort serdivan escort hendek escort ferizli escort geyve escort akyazı escort karasu escort sapanca escort

ডিজিটাল শিক্ষার বিকল্প নেই : মোস্তাফা জব্বার

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক
  • আপডেট : শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩১ বার পঠিত
মোস্তাফা জব্বার
ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার

ডিজিটাল শিক্ষার বিকল্প নেই। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, বাংলাদেশে সম্পূর্ণ ডিজিটাল শিক্ষা নিশ্চিত করা অতি জরুরি। গোটা শিক্ষা ব্যবস্থাকে ডিজিটালে রূপান্তর করার বিকল্প নেই। বৃহস্পতিবার রাতে অনলাইনে ‘ইনক্লুসিভ একসেস ফর ব্ল্যান্ডেড এডুকেশন ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক প্যানেল আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন। এটুআইয়ের ব্যবস্থাপনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, আইসিটি বিভাগ, মেটা (ফেসবুক) এবং আইটিইউ এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল শিক্ষার প্রধান তিনটি চ্যালেঞ্জ হচ্ছে ডিজিটাল কনটেন্ট তৈরি, সংযুক্তি ও ডিভাইসের সহজলভ্যতা। আমাদের মতো দেশে সব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে একধাপে শিক্ষার ডিজিটাল রূপান্তর করা কঠিন। তাই আমরা এখন ব্লেন্ডেড শিক্ষার পথ ধরে হাঁটছি।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, দুর্গম অঞ্চলসহ দেশের প্রতিটি ইউনিয়ন পর্যন্ত উচ্চগতির ও দ্রুতবেগের ব্রডব্যান্ড সংযোগ স্থাপন, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমে দুর্গম ও প্রত্যন্ত চর-দ্বীপ অঞ্চলে সংযোগদান, ৫জির উদ্বোধন, দেশে ডিজিটাল যন্ত্র উৎপাদন এবং ডিভাইস সহজলভ্য করা হচ্ছে। এছাড়া প্রাথমিক স্তর পর্যন্ত কনটেন্ট প্রস্তুতের ফলে এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা কঠিন হবে না।

ডিজিটাল সংযোগকে বাংলাদেশের মেরুদণ্ড হিসেবে অভিহিত করে তিনি বলেন, দেশের প্রতিটি ইউনিয়ন পর্যায়ে উচ্চগতির ইন্টারনেট নিশ্চিত করতে অপটিক্যাল ফাইবার সংযোগ পৌঁছে দেয়া হয়েছে। যেসব দুর্গম অঞ্চলে বিশেষ করে দ্বীপ, চর, পার্বত্য অঞ্চল এবং হাওর এলাকায়। অর্থাৎ যেখানে অপটিক্যাল ফাইবার সংযোগ পৌঁছানো সম্ভব নয়, সেসব অঞ্চলে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে সংযোগদানের কাজ শুরু হয়েছে। জনগণের দোরগোড়ায় সেবা নিশ্চিত করতে ডাকঘরগুলোকে ডিজিটাল সেবা কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে সংযোগ দেয়া হচ্ছে।

মন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে ৫৮৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফ্রি ওয়াইফাই জোন স্থাপন করা হয়েছে। বাংলাদেশ আগামী ডিসেম্বরে ‘ফাইভ-জি প্রযুক্তির যুগে’ প্রবেশ করছে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, আইওটি, রোবটিক্স, ব্লকচেইন প্রভৃতি প্রযুক্তির অনুঘটক হিসেবে কাজ করবে ফাইভ-জি। এরই ধারাবাহিকতায় শিক্ষা, চিকিৎসা, শিল্প ও বাণিজ্যে বিস্ময়কর পরিবর্তন সূচিত হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, মেটার গ্লোবাল হেড অব কানেক্টিভিটি এন্ড একসেস পলিসি মনিকা দেশাই এবং আইটিইউর স্পেশাল ইনিসিয়েটিভ গিগা চীফ এলেক্স অং প্যানেলিস্ট হিসেবে অনলাইনে আলোচনায় অংশ নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© All rights reserved © 2021 Dailynobobarta
Developed By Dailynobobarta