শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১০:৫৯ অপরাহ্ন

sakarya escort sakarya escort sakarya escort serdivan escort webmaster forum

serdivan escort serdivan escort serdivan escort hendek escort ferizli escort geyve escort akyazı escort karasu escort sapanca escort

ঝালকাঠির রাজাপুর ফাজিল মাদ্রাসায় নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ

মোঃ অহিদ সাইফুল, ঝালকাঠি প্রতিনিধি
  • আপডেট : শনিবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২১
  • ৫৮ বার পঠিত
রাজাপুর ফাজিল মাদ্রাসা

ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী রাজাপুর ফাজিল মাদ্রাসায় ২০১৭ সালে গঠিত অবৈধ কমিটি দিয়ে নিয়োগ বানিজ্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতিসহ নানা অভিযোগে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড ও মাদ্রাসা অধিদপ্তর সহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

অবৈধ কমিটির অধীনে নিয়োগের বিষয়ে মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবরে গত ২১ অক্টোবর লিখিত অভিযোগ করেন মো. মাসুম নামের মাদ্রাসায় পরিচ্ছন্নতা কর্মী হিসেবে আবেদনকারী এক প্রার্থী। এছাড়াও পরিদর্শক ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বরাবরে একই বিষয়ে মাদ্রাসাটির উপাধ্যক্ষ মোঃ জাকির হোসাইন আরো একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসীসহ বিভিন্ন মহলে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। উক্ত ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি সুরক্ষায় কর্তৃপক্ষকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানিয়েছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

সূত্রমতে জানা গেছে ১৯৫৩ সালে প্রতিষ্ঠিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটিতে অনিয়ম-দুর্নীতি, প্রভাব বিস্তার ও ক্ষমতার অপব্যবহার ব্যাপকভাবে জেঁকে বসেছে। আর সেই কারনে শিক্ষার্থীদের কল্যাণ, প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন বিঘিœত হচ্ছে দুর্নীতিপ্রবণ প্রতিষ্ঠানটিতে। দুর্নীতির মহামারীতে গ্রাস করা প্রতিষ্ঠানটির অধ্যাক্ষ মাওলানা আসাদুজ্জামান গত ৩১ জানুয়ারি ২০১৯ সালে অবসরে গেলে পদটি শুণ্য হয়। তাই ঐ পদে নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ম্যানেজিং কমিটি। অধ্যাক্ষ পদ সহ কম্পিউটার অপারেটর পদে ১ জন ও আয়া পদে ১ জন করে মোট ৩ পদে ৩ জন লোক নেয়ার জন্য বিভিন্ন পত্রিকায় ০৯-০৬-২০২০, ২০-০৬-২১, ০১-০৮-২০২১ ও ০৫-১০-২০২১ তারিখে আলাদা আলাদা বিজ্ঞপ্তি দেয় মাদ্রাসা কতৃপক্ষ। অধ্যাক্ষ পদে নিয়োগ প্রত্যাশির আত্মীয় ও বন্ধু মিলিয়ে পরিকল্পিত ভাবে ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি প্যানেল তৈরি করে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের নেতৃত্বে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি এ নিয়োগের পায়তারা করছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করে নিয়োগ বোর্ডে প্রতিনিধি না দেওয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছে।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয় প্রতিষ্ঠানটির গত ২০১৭ সালের ২২ নভেম্বর অনুমোদিত চলমান কমিটির অভিবাবক সদস্য হিসেবে আছেন স্থানীয় মাহাবুবুর রহমান ও আঃ রাজ্জাক অথচ তারা মাদ্রাসাটির কোন শিক্ষার্থীর অভিভাবক নন। অপর এক স্থানীয় লুৎফুর রহমান ম্যানেজিং কমিটির দাতা সদস্য দেখানো হলেও তিনি অত্র প্রতিষ্ঠানে নিজে কোন জমি বা নগদ অর্থ দান না করেই সাবেক অধ্যাক্ষ ও বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের অত্যন্ত আস্থাভাজন হওয়ায় তাকে ম্যানেজিং কমিটির সহ-সভাপতি হিসেবে রাখেন। এছাড়াও একজন শিক্ষক প্রতিনিধি আবুল কালামের মৃত্যু হওয়ায় পদটি শুন্য রয়েছে। সরকারি বিধান মতে মাদ্রাসার চলমান কমিটির সভাপতি অতিরিক্ত জেলা প্রশাষক (সার্বিক) মোঃ কামাল হোসেন মার্চ ২০২১ তারিখে সভাপতির দায়িত্ব নেওয়ার পরে আজ পর্যন্ত সদস্যদের উপস্থিতিতে একটি মিটিংও করেননি।

অপর দিকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের চাকুরির মেয়াদ কয়েক মাস থাকায় তিনি দুর্নীতির অভিপ্রায়ে ষড়যন্ত্র করে সভাপতিকে ভুল বুঝিয়ে পদ্ধতিগতভাবে দুর্নীতিকে নীতি হিসেবে গ্রহণ করে এ নিয়োগ প্রক্রিয়া দ্রুত এগিয়ে নিচ্ছেন। এছাড়াও তিনি ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পদবি ব্যবহার করে নানা অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতামূলক কর্মকা- অব্যাহত রাখছেন। এতে করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি এখন দুর্নীতির ভারে ন্যুজ্ব হয়ে পড়েছে। এ ধরনের অনিয়ম দুর্নীতির কারনে জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনের পথে বড় রকমের অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ মো.জাকির হোসাইন এ বিষয়ে বলেন যে, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা নুরুজ্জামান একক ক্ষমতার বলে বর্তমান পরিস্থিতি সৃষ্টি করছেন,তিনি সভা না ডেকে একক ভাবে রেজুলেশন করে আলাদা ভাবে কমিটির সদস্যদের স্বাক্ষর নিচ্ছেন এবং এই পরিস্থিতির জন্য ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দায়ী।

এ ব্যাপারে মাদ্রাসাটির অভিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ নুরুজ্জামান তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিধি সম্মতভাবে সভায় সবার সম্মতিতে এ নিয়োগ কার্যক্রমের সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং সে লক্ষ্যে সব প্রস্তুতি চলছে, এককভাবে আমি কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি, আমার বিরুদ্ধে তদন্তে এসব অভিযোগ প্রমাণিত হলে মেনে নেব। মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ মোঃ জাকির হোসাইন আমার বিরুদ্বে সকল ষরযন্ত্র করছেন।

মো.অহিদ সাইফুল
ঝালকাঠি প্রতিনিধি

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
© All rights reserved © 2021 Dailynobobarta
Developed By Dailynobobarta