dailynobobarta logo
আজ বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট ২০২৩ | ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | কনভার্টার
  1. অন্যান্য
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. খেলাধুলা
  5. গণমাধ্যম
  6. ধর্ম
  7. প্রযুক্তি
  8. বাংলাদেশ
  9. বিনোদন
  10. বিশেষ নিবন্ধ
  11. লাইফস্টাইল
  12. শিক্ষা
  13. শিক্ষাঙ্গন
  14. সারাদেশ
  15. সাহিত্য

নন্দীগ্রামে ভাটরা ইউনিয়নের দুই সড়কের কার্পেটিং কাজ সম্পন্ন

প্রতিবেদক
রাসেল মাহমুদ, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি
বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট ২০২৩ | ১০:২৯ অপরাহ্ণ
নন্দীগ্রামে ভাটরা ইউনিয়নের দুই সড়কের কার্পেটিং কাজ সম্পন্ন

বগুড়ার নন্দীগ্রামে ভাটরা-নাগড়া-খরনা নতুন সড়ক এবং কুমিড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংযোগ সড়কের কার্পেটিং কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলী ও তার দপ্তরের কর্মকর্তাদের সরেজমিন পর্যবেক্ষণে গতকাল বৃহস্পতিবার উপজেলার ভাটরা ইউনিয়নের দুটি সড়কের উন্নয়নকাজ শেষ হয়।

জানা গেছে, রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ভাটরা-নাগড়া-খরনা ১ কিলো ৫০০ মিটার গ্রামীণ সড়কটি এলজিইডি বগুড়া থেকে ২০২১-২০২২ অর্থবছরে টেন্ডারের মাধ্যমে কাজ পায় মেসার্স শিমুল এন্টারপ্রাইজ। সড়ক নির্মাণে চুক্তি হয় ১ কোটি ১৮ লাখ ১৫ হাজার ৫০৯ টাকা। এছাড়া কুমিড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংযোগের ৪২৬ মিটার সড়কের কার্পেটিং কাজ শেষ হয়েছে। ৩৪ লাখ ২ হাজার ৩২ টাকা চুক্তিতে উন্নয়ন কাজ করে মেসার্স রাজ কনস্ট্রাকশন।

এরআগে ২০২২ সালের নভেম্বর মাসে ভাটরা-নাগড়া-খরনা সড়কের উন্নয়নকাজ শুরু হলে পরিত্যক্ত নরম ইটের গুঁড়া-রাবিশ মিশ্রণ ও নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ তোলেন স্থানীয়রা। জনতার অভিযোগ ও প্রশ্নের মুখে সেসময় কাজ বন্ধ করে চলে যায় ঠিকাদারের লোকজন। এ ব্যাপারে কয়েকটি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সম্প্রতি নি¤œমানের ইটের খোয়া ও গুঁড়া-রাবিশ তুলে নিয়ে মানসম্মত সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা প্রকৌশলী।

নাগড়া গ্রামের কয়েকজন ব্যক্তি বলেন, শুরুতে ইটের গুঁড়া ও নি¤œমানের সামগ্রী দিয়ে নতুন সড়কের কাজ করেছিলো। ঠিকাদারের লোকজনের কাছে নির্মাণ সামগ্রী বিষয়ে কাগজ দেখতে চাইলে তারা কাজ ফেলে শ্রমিক নিয়ে চলে গিয়েছিলো। সাংবাদিকদের মাধ্যমে বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। ৯মাস পর সড়কের কার্পেটিং কাজ সম্পন্ন করেছে।

ঠিকাদার প্রতিনিধি জমজম ট্রেডার্সের সত্বাধিকারি এহতেশামুল হক বলেন, সড়কটির উন্নয়ন কাজের সময় উপজেলা প্রকৌশলী ও তার দপ্তরের কর্মকর্তারা সরেজমিনে তদারকি করেছেন। কার্পেটিং কাজ শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কর্মকর্তারা পর্যবেক্ষণ ও পরিদর্শন করেছেন।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকৌশলী শা-রিদ শাহনেওয়াজ বলেন, ভাটরা-নাগড়া-খরনা সড়কের কাজে যেখানে সমস্যা ও অনিয়ম হয়েছে বলে জনগণের মৌখিক অভিযোগ ছিল, সেগুলোতে পুনরায় ভালো করে কাজ করানো হয়েছে।

রাসেল মাহমুদ, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি
+ posts

সর্বশেষ - মানিকগঞ্জ