dailynobobarta logo
আজ রবিবার, ২৩ জুলাই ২০২৩ | ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | কনভার্টার
  1. অন্যান্য
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. খেলাধুলা
  5. গণমাধ্যম
  6. ধর্ম
  7. প্রযুক্তি
  8. বাংলাদেশ
  9. বিনোদন
  10. বিশেষ নিবন্ধ
  11. লাইফস্টাইল
  12. শিক্ষা
  13. শিক্ষাঙ্গন
  14. সারাদেশ
  15. সাহিত্য

ডায়াগনস্টিক সেন্টারে হামলা, ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে লুটের অভিযোগ

প্রতিবেদক
আল মামুন, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি
রবিবার, ২৩ জুলাই ২০২৩ | ১১:১৬ অপরাহ্ণ
ডায়াগনস্টিক সেন্টারে হামলা, ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে লুটের অভিযোগ

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলায় একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর, মালিক-কর্মচারীদের মারধর এবং নগদ ২ লাখ টাকার বেশি ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রাজু ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় মিজান ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক এবং দৌলতপুর উপজেলা বিআরডিবি’র ৫ বারের চেয়ারম্যান মোঃ মিজানুর রহমান দৌলতপুর থানায় রাজু ও তার সহযোগী মো. রাসেলসহ অজ্ঞাত ২০-২৫ জনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

মিজানুর রহমান ডেইলি নববার্তাকে বলেন, ‘স্থানীয় সমেতপুর গ্রামের কবির হোসেনের ছেলে রাজু এবং তার সহযোগীরা দীর্ঘদিন ধরে আমার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এসে চাঁদা দাবি করছিল। চাঁদা না দেওয়ায় তারা বিভিন্ন সময় ভাঙচুর ও মারধরের হুমকি দেয়। আজ সকাল ১১টার দিকে রাজু ও তার সহযোগীরা লোহার রড, হাতুড়ি ও কাঠের লাঠি নিয়ে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এসে আমার কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। আমি চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তারা আমাকে কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে জখম করে। আমাকে রক্ষায় এগিয়ে এলে তারা আমার স্ত্রী কুলসুম আরা, কর্মচারী মো. মোরশেদ ও ডলিকেও মারধর করে। তারা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের জানালার গ্লাস, ডিজিটাল ও স্টিলের সাইনবোর্ড, কলাপসিবল গেট, দরজার তালা ও কিছু মেশিন ভাঙচুর করে। এরপর রাজু ক্যাশবাক্স থেকে ২ লাখ ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।’

‘এসময় জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে কল করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। তবে তারা আসার আগেই রাজু এবং তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। পরে আমি দৌলতপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। তবে সেটি এখনো মামলা হিসেবে রেকর্ড হয়নি’, বলেন তিনি।

মিজানুর রহমান আরও বলেন, ‘আহত কর্মচারী মোরশেদকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আমিসহ আহত অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছি এবং ওষুধ সেবন করছি।’

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত রাজুর ফোনে কল করলে তিনি রিসিভ করেন। কিন্তু পরক্ষণেই অভিযোগ শুনে ফোন কেটে দেন। এরপর তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম মোল্যা ডেইলি নববার্তাকে বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আল মামুন, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি
মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি | Website | + posts

সর্বশেষ - মানিকগঞ্জ