dailynobobarta logo
আজ মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর ২০২৩ | ২৯শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ | কনভার্টার
  1. অন্যান্য
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. খেলাধুলা
  5. গণমাধ্যম
  6. ধর্ম
  7. প্রযুক্তি
  8. বাংলাদেশ
  9. বিনোদন
  10. বিশেষ নিবন্ধ
  11. লাইফস্টাইল
  12. শিক্ষা
  13. শিক্ষাঙ্গন
  14. সারাদেশ
  15. সাহিত্য

বিশ্বকাপে নতুন ইতিহাস গড়ে জিতলো পাকিস্তান

প্রতিবেদক
স্পোর্টস ডেস্ক
মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর ২০২৩ | ১১:০৭ অপরাহ্ণ
বিশ্বকাপে নতুন ইতিহাস গড়ে জিতলো পাকিস্তান

ইংল্যান্ডের দেয়া ৩২৮ রান তাড়া করে ২০১১ বিশ্বকাপে সবাইকে চমকে দিয়েছিল আয়ারল্যান্ড। বিশ্ব আসরে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড গড়েছিল আইরিশরা। এক যুগ পর তাদের সে রেকর্ড ভেঙে নতুন ইতিহাস গড়ল পাকিস্তান।

হায়দরাবাদে মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) আব্দুল্লাহ শফিক ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের জোড়া সেঞ্চুরিতে ১০ বল হাতে রেখেই শ্রীলঙ্কার দেয়া ৩৪৫ রান তাড়া করে ৬ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে পাকিস্তান।

ওয়ানডে বিশ্বকাপে ১৩ আসরের ইতিহাসে এখন এটিই সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড। একই সঙ্গে হায়দরাবাদের রাজিব গান্ধী স্টেডিয়ামেরও রেকর্ডটি দখলে নিয়েছে বাবর আজমের দল। এর আগে এ মাঠে ভারতের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ২৪৯ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার।

শ্রীলঙ্কার দেওয়া ৩৪৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই আউট হয় ইমাম উল হক। ১২ বলে ১২ রান করেন তিনি। দলীয় ৩.৩ ওভারে দিলশান মধুশানাকার বলে কুশল পেরেরা হাতে ক্যাচ তুলে প্যাভিলিয়নের পথে হেঁটেছেন পাকিস্তানি এই ব্যাটার। দ্বিতীয় উইকেটে মাঠে নেমে অধিনায়ক বাবর আজমও নিজের ব্যক্তিগত ইনিংস বড় করতে পারেননি। দলীয় ৭.২ ওভারে মধুশানাকার বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন পাকিস্তান অধিনায়ক।

তৃতীয় উইকেটে ব্যাট করতে নামা রিজওয়ানকে নিয়ে শুরুর ধাক্কা সামল দেন আরেক ওপেনার শফিক। এই দুই জুটি উইকেটে থিতু হয়ে রানের চাকা সচল রাখতে থাকে। শফিক ও রিজওয়ানের ১৫৬ বলে ১৭৬ রানে জুটিতে বিপদ কাটিয়ে এগিয়ে চলে পাকিস্তান। তবে দলীয় ২১৩ রানে শফিক আউট হলে ভাঙে এই জুটি। যাওয়ার আগে তিনি খেলেছেন ১০৩ বলে ১১৩ রানের ইনিংস।

শফিক আউট হলেও এক প্রান্ত আগলে রেখে শাকিলের সঙ্গে ৯৬ রানের জুটি গড়ে জয়ের ভিত তৈরি করে রিজওয়ান। দলীয় ৩০৮ রানে শাকিল আউট হলে ভাঙে এ জুটি। ৩১ বলে ৩০ করেন তিনি। এদিকে দেখেশুনে খেলা রিজওয়ানের ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতকে শেষ পর্যন্ত ইতিহাস গড়ে লঙ্কানদের ৬উইকেটে হারায় পাকিস্তান। ১২১ বলে ১৩১ করে রিজওয়ান ও ইফতেখার আহমেদ ১০ বলে ২২ রান করে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নামা শ্রীলঙ্কার হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে আসেন পাথুম নিশাঙ্কা ও কুশাল পেরেরা। তবে শুরুটা ভালো হয়নি লঙ্কানদের। শুরুতে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১.৪ ওভারে রানের খাতা খোলার আগে ফিরেন কুশল পেরেরা। হাসান আলীর বলে মোহাম্মদ রিজওয়ানের হাতে ক্যাচ তুলে বিদায় নিয়েছেন তিনি।

দ্বিতীয় উইকেটে মাঠে নামেন কুশল মেন্ডিস। পাথুম নিশাঙ্কা নিয়ে পাকিস্তান বোলারদের ওপর তান্ডব চালাতে থাকেন কুশাল। একই সঙ্গে রানের চাকা সচল রেখে অর্ধশতকের দেখা পান নিশাঙ্কা। ফিফটির পরে অবশ্য আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। ৬১ বলে ৫১ করেন তিনি। নিশাঙ্কা আউট হলে উইকেটে আসা সাদিরা সামারাবিক্রমাকে নিয়ে ব্যাট হাতে ঝড় তুলতে থাকেন মেন্ডিস।

দেখেশুনে খেলে চাপ কাটিয়ে ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতরান পূর্ণ করেন তিনি। সেঞ্চুরি করার কিছুক্ষণ পরই আউট হয়েছেন তিনি। যাওয়া আগে ৭৭ বলে ১২২ রানের ইনিংস খেলেছেন এই ডানহাতি ব্যাটার। এরপর মাঠে নামেন চারিথ আসালঙ্কা। তিনিও অবশ্য উইকেটে এসে থিতু পারেননি। দলীয় ২২৯ রানে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন। পরে পাঁচে ব্যাট করতে নামা ধনাঞ্জয়া ডি সিলভাকে সঙ্গে নিয়ে লঙ্কানদের রানের চাকা সচল রাখেন সাদিরা।

তবে ৬৫ রানের জুটি গড়ে দলীয় ২৯৪ রানে ধনাঞ্জয়া আউট হলে ভাঙে এই জুটি। এরপর ২২ গজে ব্যাট করতে আসেন লঙ্কান অধিনায়ক দাসুন শানাকা। তবে বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি তিনিও। দলীয় ৩২৪ রানে ১২ করে আউট হন তিনি। তবে একপাশ আগলে রেখে রানের চাক সচল রেখে নিজের শতক তুলে নেন সাদিরা।

তবে সেঞ্চুরি করে উইকেটে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তিনি। দলীয় ৩৩৫ রানে আউট হন তিন, যাওয়া আগে ৮৯ বলে ১০৮ রানের ইনিংস খেলেন। শেষ পর্যন্ত সাদিরার শতকে নির্ধারিত ৫০ ওভারের ৯ উইকেট হারিয়ে ৩৪৪ রানের সংগ্রহ পায় দাসুন শানকার দল। পাকিস্তানের হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নেন হাসান আলী।

সর্বশেষ - মানিকগঞ্জ

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com